রাজৈরে প্যারামেডিকেল ছাত্রের মৃত্যু নিয়ে রহস্য

প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল ২০২০, ০৮:৫০

রাজৈর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি

মাদারীপুরের রাজৈরের গ্রামে প্রবীর বেপারী (২২) নামে এক যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। এ মৃত্যুকে কেন্দ্র করে নানা বিবরণ পাওয়া গেছে। পরিবারের দাবি, তাকে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

অন্যদিকে তাস খেলার বিরোধকে কেন্দ্র করে হত্যা সংঘটিত হয়েছে। আরেক দিকে তাস খেলার সময় পুলিশ আতঙ্গে দৌড় দিলে পড়ে গিয়ে প্রবীর হার্ট অ্যাটাকে মারা যায়। এ নিয়ে এলাকায় চলছে আলোচনা সমালোচনা|।গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮ টার সময় উপজেলার চৌরাশী বাজিতপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত প্রবীর বেপারী একই গ্রামের খোকন বেপারীর ছেলে এবং ঢাকার একটি প্যারামেডিকেলের ছাত্র ছিলো । পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ দিপক হালদার নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চৌরাশী বাজিতপুর গ্রামের খোকন বেপারীর ছেলে প্রবীর বেপারীকে (২২) মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নিজ বাড়ি থেকে  তার এক বন্ধু দিপক হালদার ঘুরতে যাওয়ার কথা বলে ডেকে নিয়ে যায় । পরে ৪/৫জন বন্ধু মিলে তাস খেলতে বসে। এ তাস খেলা নিয়ে বন্ধুদের বিরোধের সৃষ্টি হয়।

রাত ৮টার দিকে দিপক বাড়িতে এসে জানায়, প্রবীর  অসুস্থ হয়ে চান্দের ডিঙ্গা পুকুর পাড়ে পড়ে  রয়েছে । পরে স্থানীয়রা রাত সাড়ে ৮টার সময় মুমূর্ষ অবস্থায় প্রবীরকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

নিহত প্রবীবের চাচী মাধবী বিশ্বাস জানান, এলাকার দিপক নামে একটি ছেলে প্রবীরকে ওই দিন সন্ধ্যায় ঘুরতে যাবে বলে ডেকে নিয়ে  তাকে মারপিট করে হত্যা করে উক্তস্থানে ফেলে রেখে গেছে।  

রাজৈর ওসি খোন্দকার শওকত জাহান জানান, কয়েক বন্ধু মিলে তাস খেলার সময় ঝগড়া হয় । এসময় প্রবীর দৌড়াতে গিয়ে পড়ে এ ঘটনা ঘটতে পারে । ধারণা করা হচ্ছে, হার্ট অ্যাটাক করে মারা গেছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরন করেছে । পুলিশ এ ঘটনায় দিপক হালদার নামে এক যুবককে  গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে।  ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

পিডিএসও/তাজ