টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে মাদক কারবারি নিহত

প্রকাশ : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৬:৪৪ | আপডেট : ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৬:৫৫

কক্সবাজার প্রতিনিধি

কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্তের বৃহত্তর জাদিমোরা-নয়াপাড়া পয়েন্টে মাদক পাচারকারী এবং বিজিবি জওয়ানদের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। এতে বিজিবির ২ জওয়ান আহত হয়েছেন। এছাড়া ঘটনাস্থল হতে বিপূল পরিমাণ ইয়াবা, অস্ত্রসহ এক মাদক কারবারিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

জানা গেছে, মঙ্গলবার রাত সোয়া ২ টার দিকে টেকনাফ ২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের দমদমিয়া বিওপির একটি টহলদল দক্ষিণ জাদিমোরা পয়েন্ট দিয়ে মিয়ানমারের লালদ্বীপ হতে ইয়াবার চালান আসার সংবাদ পেয়ে কৌশলে অবস্থান নেন। কিছুক্ষণ পর মিয়ানমার হতে আসা কাঠের নৌকা হতে বেড়িবাঁধে অবস্থানে থাকা লোকটি কাছে গিয়ে কিছু নিয়ে ফেরার সময় বিজিবি জওয়ানেরা চ্যালেঞ্জ করলে মাদক পাচারকারী গ্রুপের সদস্যরা বিজিবিকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করে। এতে বিজিবির নায়েক মোঃ হাবিবুর রহমান, সিপাহী মোঃ বিপ্লব হাসান আহত হলে বিজিবিও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলিবর্ষণ করে। কিছুক্ষণ পর পরিস্থিতি শান্ত হয়।

বিজিবি জওয়ানেরা উক্ত স্থানে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করে ঘিরে রাখে। পরে ঘটনাস্থল তল্লাশি করে ১লাখ ২০হাজার ইয়াবা, ১টি দেশীয় তৈরি বন্দুক, ২ রাউন্ড তাঁজা কার্তুজ ও ১টি কিরিচসহ গুলিবিদ্ধ ১জনকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য টেকনাফ উপজেলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়।সেখানে আহত বিজিবি জওয়ানদের চিকিৎসা দেওয়া হয়।

 গুলিবিদ্ধ মাদক কারবারিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার হাসপাতালে রেফার করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়। নিহত ব্যক্তি হ্নীলা জাদিমোরার আব্দুস সালামের পুত্র ঈমাম হোসেন (২৫) বলে শনাক্ত করা হয়। মৃতদেহ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান (পিএসসি), মাদক উদ্ধার অভিযানে দু’পক্ষের গোলাগুলি, দুই বিজিবি জওয়ান আহত এবং ইয়াবা, বুলেট ও কিরিচসহ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধারকৃত মাদক কারবারী চিকিৎসাধীন অবস্থায় নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি আরো জানান, এই ব্যাপারে পৃথক মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

পিডিএসও/তাজ