ধর্ষণের পর অন্তসত্ত্বা ৭ম শ্রেণির ছাত্রী

প্রকাশ : ৩০ আগস্ট ২০১৯, ১২:২০

ভূরুঙ্গামারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি
ফাইল ছবি

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে। ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী এখন সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা।

ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার পাইকেরছড়া ইউনিয়নের খামার বেলদহ গ্রামে। ছাত্রীর বড় ভাই ছানোয়ার হোসেন বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ভূরুঙ্গামারী থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

জানা গেছে, আবদুর রহিমের মেয়ে ও আন্ধারিঝাড় বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী পূর্ণিমার (১৩) সঙ্গে একই গ্রামের আবদুস সালামের পুত্র হোসেন আলি স্বপনের (১৯) প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এক পর্যায়ে ওই স্কুলছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে পার্শ্ববর্তী আজাহার ও বালাশি বেগমের বাড়িতে নিয়ে বিভিন্ন সময় ধর্ষণ করতো। ছাত্রীটি অন্তসত্ত্বা হয়ে পড়লে স্বপনকে বিয়ের জন্য চাপ দেন। কিন্ত স্বপন বিয়ে না করে তালবাহানা শুরু করে। এক পর্যায়ে অন্তসত্বার ঘটনাটি প্রকাশ হলে ইউপি চেয়ারম্যান ও গণ্যমান্য ব্যক্তিরা বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসার চেষ্টা চালান। কিন্ত ধর্ষকের পরিবার তা প্রত্যাখান করে এবং স্বপন এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়।

পাইকেরছড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক প্রতিদিনের সংবাদকে জানান, এ ব্যাপারে স্থানীয়ভাবে মিমাংসার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল, কিন্ত ছেলেপক্ষ মানতে রাজি না হওয়ায় তা ভেস্তে গেছে। ভূরুঙ্গামারী থানার ওসি ইমতিয়াজ কবির জানান, থানায় একটি মামলা হয়েছে। আসামী গ্রেফতারের ব্যাপারে জোড় চেষ্টা চলছে।

পিডিএসও/হেলাল