জাতীয় সংগীতের কথা বলে দেখালেন অশ্লীল ভিডিও

প্রকাশ | ০৫ আগস্ট ২০১৯, ১৭:০৯ | আপডেট: ০৫ আগস্ট ২০১৯, ১৭:২২

অনলাইন ডেস্ক

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় দুই শিক্ষিকাকে জাতীয় সংগীতের বদলে মোবাইলে অশ্লীল ভিডিও দেখিয়ে শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় বিচার চেয়ে সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে রোববার দুপুরে লিখিত অভিযোগ করেছেন ওই দুই শিক্ষিকা।

রোববার ও তার আগেও উপজেলার মাধাইনগর ইউনিয়নের সরাপপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটেছে। অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের নাম ভবেশ চন্দ্র রায়। তবে ইতোমধ্যে অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ৩ সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ওই প্রধান শিক্ষক একই বিদ্যালয়ের দুই সহকারী শিক্ষিকাকে মোবাইলে অশ্লীল ভিডিও দেখিয়ে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। তবে বিষয়টি স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিকে বলেও কোনো সমাধান পাননি। পরে বাধ্য হয়ে রোববার জেলা প্রশাসকসহ সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দেন ওই দুই ভুক্তভোগী শিক্ষিকা।

ভুক্তভোগী এক সহকারী শিক্ষিকা বলেন, ‘চাকরিসংক্রান্ত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র স্বাক্ষরের জন্য প্রধান শিক্ষকের কক্ষে গেলে তিনি আমাকে কুপ্রস্তাব দেন। বিষয়টি সিনিয়র শিক্ষক শাজাহান আলী ও জহুরুল ইসলামকে জানালে তারা সভাপতিকে জানান। পরে সভাপতির নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করেন প্রধান শিক্ষক।’

কিন্তু তারপরও তিনি আবার গতকাল রোববার আরেক সহকারী শিক্ষিকাকে তার অফিস কক্ষে ডাকেন। এরপর প্রধান শিক্ষক নিজের মোবাইল তার হাতে দিয়ে জাতীয় সংগীত বের করতে বলেন। ওই শিক্ষিকা মোবাইল হাতে নিয়ে অশ্লীল ভিডিও দেখে মোবাইল ফেলে অফিস কক্ষ থেকে দ্রুত বের হয়ে বিষয়টি শিক্ষকদের জানান। কিন্তু কোনো বিচার না পেয়ে রোববার দুপুরে সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেন ওই দুই সহকারী শিক্ষিকা।

অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করে তাড়াশ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আখতারুজ্জামান বলেন, ‘শ্লীলতাহানির বিষয়ে দুই শিক্ষিকা অভিযোগ দিয়েছেন। এ বিষয়ে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। প্রমাণ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

পিডিএসও/রি.মা