আবারও মাদরাসাছাত্রী যৌনতার শিকার, অধ্যক্ষসহ গ্রেপ্তার ২

প্রকাশ : ২০ এপ্রিল ২০১৯, ১৬:৪৭

অনলাইন ডেস্ক

বাগেরহাটের রামপালে ১০ বছর বয়সী মাদরাসাছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় মাদরাসার অধ্যক্ষ ওলিয়ার রহমানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার গভীর রাতে উপজেলার ফয়লা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

এর আগে দুপরে একই ঘটনায় অভিযুক্ত ফেরদৌস শেখ (১৮) নামে এক মুদি ব্যবসায়ীকে আটক করে পুলিশ। গ্রেফতার ফেরদৌস শেখ রামপাল উপজেলার শরাফপুর গ্রামের লুৎফর শেখের ছেলে।

রামপাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. লুৎফর রহমান বলেন, মাদরাসায় শিক্ষার্থী ধর্ষণের ঘটনায় তার মামা বাদী হয়ে মাদারাসা অধ্যক্ষসহ চারজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রধান আসামি মুদি ব্যবসায়ী ফেরদৌস শেখ (১৮) এবং মাদরাসার অধ্যক্ষ ওলিয়ার রহমানকে আটক করেছি। তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করার প্রস্তুতি চলছে। অন্য আসামিদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

স্থানীয়রা জানায়, ফকিরহাটে নানা বাড়িতে থেকে রামপাল উপজেলার একটি মাদরাসার ছাত্রী নিবাসে থেকে পড়ালেখা করছিল নির্যাতিতা শিশুটি। মাদরাসার সামনের মুদি দোকানি ফেরদৌসের সঙ্গে মেয়েটির পরিচয় হয়। সেই পরিচয়ের সূত্র ধরে ১১ এপ্রিল রাতে মুদি দোকানি ফেরদৌস সুকৌশলে মেয়েটিকে একটি ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে।

এর আগে ২৭ মার্চ ফেনীর সোনাগাজীতে মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে নিজ কক্ষে নিয়ে শ্লীলতাহানি করেন সোনাগাজী ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলা। এ ঘটনায় ছাত্রীর মা শিরিন আক্তার বাদী হয়ে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা করেন। ওই দিনই অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলাকে আটক করে পুলিশ। সে ঘটনার পর থেকে তিনি কারাগারে আছেন।

পিডিএসও/রি.মা