বুড়িমারীতে গণধর্ষণ মামলার মূল হোতা নুরনবী ও নজু গ্রেফতার

প্রকাশ : ২২ মার্চ ২০১৯, ১৯:৩৫ | আপডেট : ২২ মার্চ ২০১৯, ১৯:৪১

লালমনিরহাট প্রতিনিধি

লালমনিরহাটের বুড়িমারী স্থল বন্দর এলাকায় এক মহিলাকে চারদিন ধরে আটকে রেখে গণধর্ষণ করার মূল হোতা নুরনবী ও নজুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

শুক্রবার বিকালে জেলার হাতীবান্ধা অডিটরিয়াম এলাকায় আনন্দ আবাসিক হোটেল থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এ সময় পুলিশ ওই হোটেল থেকে এক নারীকেও গ্রেফতার করেছে। 

হাতীবান্ধা থানার ওসি ওমর ফারুক জানান, গণধর্ষণের মুল দুই হোতা ওই আবাসিক হোটেলে আছেন এমন একটি গোপন সংবাদ আসে পুলিশের কাছে। পরে পাটগ্রাম থানা পুলিশের সহযোগিতায় হাতীবান্ধা থানা পুলিশ ওই আবাসিক হোটেলে অভিযান চালায়। এ সময় গণধর্ষণ মামলার মুল হোতা আনন্দ আবাসিক হোটেলের মালিক, হাতীবান্ধা উপজেলার বাড়াইপাড়া এলাকার আফছার আলীর পুত্র নজরুল ইসলাম নজু ও পাটগ্রাম ইসলামপুর এলাকার রমজান আলীর পুত্র নুরনবীকে গ্রেফতার করা হয়। একই সময় হোটেল থেকে এক নারীকেও আটক করা হয়েছে। পরে তাদের পাটগ্রাম থানা পুলিশে সোর্পদ করা হয়েছে।

লালমনিরহাট পুলিশ সুপার এস এম রশিদুল হক এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গণধর্ষনের মূল হোতাসহ আরো দুইজনকে আটক করা হয়েছে। এ মামলায় চার আসামির মধ্যে তিনজনকে আটক হলো। আরো একজন পলাতক রয়েছে তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

উল্লেখ্য, ওই নারীকে বিনা পাসপোর্টে ভারতে যাওয়ার ব্যবস্থার কথা বলে শেরপুর থেকে এনে ৪দিন ধরে আটকিয়ে গণধর্ষণ করেন তারা। পরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই নারীকে বুড়িমারী স্থলবন্দর এলাকায় যশোদা পরিবহন নামে বাস কাউন্টারে উদ্ধার করে পাটগ্রাম থানা পুলিশ। 

পিডিএসও/রি.মা