এক গ্রামের অর্ধশত নারী ছিনতাইকারী!

প্রকাশ : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৬:৪৯

চট্টগ্রাম ব্যুরো

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর থানার ডরমন্ডল গ্রাম। এ গ্রামের অর্ধশত নারী চট্টগ্রাম নগরে আসে ছিনতাই করতে। ছিনতাই শেষে তারা শহর ছেড়ে চলে যান। ছিনতাইকারী চক্রটির এক সদস্যকে রোববার গ্রেফতারের পর পুলিশ এই তথ্য পেয়েছে।

গ্রেফতার নাজমা বেগম (৩৫) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর থানার ডরমন্ডল গ্রামের মৃত সবুর হোসেনের মেয়ে। পুলিশ জানায়, রোববার সকালে চৌমুহনী মোড় থেকে কাজীর দেউড়ী এলাকায় যাওয়ার জন্য টেম্পুতে উঠেন সুপ্রিয়া বড়ুয়া। সে সময় বসার জায়গা না থাকার পরও কয়েকজন নারী টেম্পোতে উঠে দাঁড়ানো অবস্থায় ছিল। পরে সকাল ১১টার দিকে কাজীর দেউড়ী মোড়ে নামার পর তিনজন সুপ্রিয়াকে ঘিরে ধরে জোরপূর্বক গলার চেইন ছিনিয়ে নেয়। এ সময় আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে নাজমাকে চেইনসহ আটক করলেও রাহেলা ও মরিয়ম নামের অপর দুই নারী পালিয়ে যান। এরপর টহল পুলিশ গিয়ে নাজমাকে থানায় নিয়ে যায়।   

কোতোয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, গত ২৯ জুন ছিনতাইয়ের ঘটনায় নাজমা, রাহেলা ও মরিয়মসহ সাতনারীকে গ্রেফতার করি আমরা। তারা পরস্পরের স্বজন এবং তাদের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে। সীতাকুন্ডের ইমামনগরে তারা থাকেন। এরপর ২২ জুলাই জামিনে মুক্ত হয়ে তারা আবারও ছিনতাইয়ে জড়িয়ে পড়েছে। 

তিনি বলেন, রোববার সুপ্রিয়ার কাছ থেকে চেইন ছিনিয়ে নেওয়ার সময় গ্রেফতার নাজমার সাথে পলাতক রাহেলা ও মরিয়ম অংশ নিয়েছিলো। নাজমাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করে জানা গেছে, তার গ্রামের বাড়ি ব্র্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর থানার ডরমন্ডল গ্রামে। তারা প্রায় ৫০ জন নারী চট্টগ্রাম নগরীতে ছিনতাইয়ের সাথে জড়িত। অধরা থাকতে শহরে এসে অপরাধ করে তারা গ্রামে চলে যায়।

পিডিএসও/এআই