চকরিয়ার কৈয়ারবিলে সেনা সদস্যকে কুপিয়ে জখম

প্রকাশ : ২১ মে ২০১৮, ২০:৩৩ | আপডেট : ২১ মে ২০১৮, ২০:৪৩

মোঃ নাজমুল সাঈদ সোহেল, চকরিয়া

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার কৈয়ারবিল ইউপি চেয়ারম্যান মক্কী ইকবালের নির্দেশে শ্বশুরালয়ে বেড়াতে আসা এক সেনা সদস্য ও তার সিএনজিচালককে কুপিয়ে জখমের ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সোমবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের খোঁজাখালী প্রাইমারী স্কুলের সামনে এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। 

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড খীলছাদক গ্রামের নুর মোহাম্মদের স্কুল পড়ুয়া মেয়েকে স্কুলে যাওয়ার পথে উত্যক্ত করে আসতো একই এলাকার আবদুল কুদ্দুছের পুত্র মোঃ ইউসুফ। এনিয়ে আবু ইউসুফের বড় ভাই ওসমান গনি গং পরিকল্পিতভাবে নুর মোহাম্মদ গংয়ের উপর হামলা চালায়। হামলায় গুরুত্বর আহত নুর মোহাম্মদ বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এঘটনায় মামলাও করেছে।

সর্বশেষ নুর মোহাম্মদের মেয়ের জামাই বাংলাদেশ সেনা বাহিনীর সাভার ক্যান্টনমেন্টে কর্মরত সৈনিক তারেক আজিজ (২৫) ১০দিনের ছুটিতে এসে রোববার বিকাল ৩ টায় শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে যান। সোমবার সকালে সেনা সদস্য সিএনজি গাড়ি যোগে নিজ বাড়ি চকরিয়া উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের এসএমচর গ্রামে ফেরার পথে খোঁজাখালী স্কুলের সামনে পৌঁছলে অভিযুক্ত ওসমান গনি, ইব্রাহিম, রুবেল ও ইউসুফসহ ৫/৬ জনের একদল দূর্বৃত্ত সিএনজি গাড়ি গতিরোধ করে অতর্কিত হামলা চালায়।

হামলায় সেনা সদস্য তারেক আজিজ ও তার সিএনজি চালক আবু তাহের (২৭) গুরুত্বর আহত হয়েছে। এছাড়া তাদের কাছ থেকে ৪৬হাজার ৫ শত টাকা ও ২টি মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয়। ঘটনার পরপর আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সেনা সদস্য তারেক কাকারা এসএমচর গ্রামের মোঃ আজাদের পুত্র ও সিএনজিচালক আবু তাহের একই এলাকার আবুল কাসেমের ছেলে।

পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, স্থানীয় কৈয়ারবিল ইউপি চেয়ারম্যান মক্কী ইকবাল হোসেনের নির্দেশে এ হামলাটি সংঘটিত হয়েছে। এঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানিয়েছেন তারা।

এবিষয়ে চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানিয়েছেন, সেনা সদস্যের ওপর হামলার ঘটনায় কেউ এখনো লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওযা হবে।

পিডিএসও/রিহাব