ছয় জেলায় বন্দুকযুদ্ধে নিহত ৬

প্রকাশ : ২০ মে ২০১৮, ১০:২৮ | আপডেট : ২০ মে ২০১৮, ১৩:৫২

অনলাইন ডেস্ক

দেশের ছয় জেলায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ৬ জন নিহত হয়েছেন। শনিবার রাতে বরিশাল, ময়মনসিংহ, যশোর, ফেনী,  দিনাজপুর ও টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে এ ঘটনা ঘটে। বন্দুকযুদ্ধে নিহত চারজন মাদক ব্যবসায়ী, একজন ডাকাত ও অপর একজনকে ছিনতাইকারী বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ফেনী : জেলার ছাগলনাইয়ায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে আলমগীর হোসেন (৩২) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। শনিবার দিনগত রাত ২টার দিকে ছাগলনাইয়ায় পশ্চিম পাঠাননগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ছাগলনাইয়া থানার ওসি এম মোর্শেদ বলেন, নিহত আলমগীর একজন চিহ্নিত মাদক চোরা কারবারি। তার বিরুদ্ধে ফেনী সদর, ফুলগাজী ও ছাগলনাইয়া থানায় নয়টি মামলা রয়েছে।

তিনি জানান, ছাগলনাইয়ার পশ্চিম পাঠান গড় এলাকায় মাদকের একটি বড় চালান যাওয়ার খবরে পুলিশের একটি দল সেখানে অভিযানে যায়। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা গুলি করে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। গোলাগুলি থামার পর সেখানে আলমগীরকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়। পরে তাকে জেলা সদর হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আলমগীরকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি বন্দুক, তিন রাউন্ড গুলি, এক হাজার ইয়াবা ও শতাধিক বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করেছে। এ অভিযানেও দেলোয়ার হোসেন ও মতিয়ার রহমান নামে পুলিশের দুই এএসআই আহত হয়েছেন এবং তাদের জেলা সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

ময়মনসিংহ : জেলায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে বিপ্লব নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। পুলিশের দাবি, ময়মনসিংহের শীর্ষ সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন বিপ্লব। শনিবার মধ্য রাতে শহরের চরপাড়া এলাকার গনশার মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ কনস্টেবল রাশেদুল ও কাওছার আহত হয়েছেন। তাদের ময়মনসিংহ পুলিশ লাইনস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি মো. আশিকুর রহমান জানান, ময়মনসিংহের শীর্ষ সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন বিপ্লব। তিনি ১০-১২টি মামলার আসামি। রাতে বিপ্লব ও তার সহযোগীরা মাদকের চালান ভাগাভাগি করছিলেন বলে খবর পাওয়া যায়। পরে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল চরপাড়া এলাকার গনশার মোড়ে অভিযান চালায়।

তিনি আরও জানান, পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা গুলি চালায়। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছোড়ে। এ সময় বিপ্লব গুলিবিদ্ধ হন এবং অন্য মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হন। পরে বিপ্লবের শরীর তল্লাশি করে ২০০ গ্রাম হেরোইন, ২০০টি ইয়াবা, তিনটি গুলির খোসা এবং ২টি ছুরি উদ্ধার করা হয়। গুলিবিদ্ধ বিপ্লবকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বরিশাল : জেলার সদর উপজেলার শায়েস্থাবাদে গোয়েন্দা পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক ডাকাত নিহত হয়েছেন। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ১টি পাইপগান, ১টি রামদা, ১টি চাপাতি ও ৮ রাউন্ড গুলির খালি কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার দিনগত রাত আড়াইটার দিকে শায়েস্তাবাদ ইউনিয়নের দক্ষিণ চরআইচা গ্রামের বটতলা বাজারসংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে নিহতের পরিচয় জানা যায়নি।

গোয়েন্দা পুলিশ জানায়, সম্প্রতি শায়েস্তাবাদে ডাকাতি বেড়ে যাওয়ায় ওই এলাকায় পুলিশের টহল বাড়িয়ে দেয়া হয়। এরই ধারাবাহিকতায় রোববার রাত আড়াইটার দিকে আইচা গ্রামে গোয়েন্দা পুলিশের একটি টিম টহল দিচ্ছিল। পথিমধ্যে পুলিশ টর্সলাইট মারলে কয়েক জনকে দেখতে পেয়ে তাদের পরিচয় জানতে চাইলে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে একজনের মরদেহ পাওয়া যায়। ঘটনাস্থল থেকে ১টি পাইপগান, ১টি রামদা, ১টি চাপাতি ও ৮ রাউন্ড গুলির খালি কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউনিয়া থানার ওসি নুরুল ইসলাম পিপিএম জানান, নিহত ব্যক্তির বয়স আনুমানিক ৩৮ বছর। এ ঘটনায় ডিবি পুলিশের এসআই দেলোয়ার, কনস্টেবল রফিক ও হাফিজ আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

দিনাজপুর : রোববার ভোরে দিনাজপুরের বিরল উপজেলার তেগরা এলাকায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে গালকাটা বাবু নামে এক মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছেন। বিরল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল মজিদ  জানান, গালকাটা বাবু দীর্ঘদিন ধরে গাঁজা, ফেনসিডিল ও ইয়াবা বিক্রি করে আসছিলেন।

যশোর : যশোরে মাদক ব্যবসায়ীদের কথিত বন্দুকযুদ্ধে ডালিম হোসেন (৩৫) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। রোববার ভোরে যশোরের ছুটিপুর সড়কের রুদ্রপুর গ্রামের এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র-গুলি, মাদক উদ্ধার করেছে। নিহত মাদক ব্যবসায়ী শহরের শংকরপুর এলাকার সোহরাব হোসেনের ছেলে। 

যশোর কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি কেএম আজমল হুদা জানান, যশোরের ছুটিপুর সড়কের রুদ্রপুর গ্রামে দু’দল মাদক বিক্রেতা বন্দুকযুদ্ধে লিপ্ত হয়েছে—এমন সংবাদ পেয়ে রোববার ভোরে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, নিহত ডালিমের নামে মাদক দ্রব্য আইনে ৬টি মামলা রয়েছে। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠিয়েছে। 

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) : শনিবার গভীর রাতে মির্জাপুর-বালিয়া-উয়ার্শী সড়কের পুষ্টকামুরী দক্ষিণপাড়া ব্রিজের কাছে বন্দুকযুদ্ধে অজ্ঞাতপরিচয় এক ছিনতাইকারী নিহত হয়েছেন।

পুলিশ জানায়, পুলিশ সদস্যার ওই ব্রিজের কাছে গেলে ছিনতাইকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে। পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়লে ছিনতাইকারীরা পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ ওই স্থানে তল্লাশি চালিয়ে অজ্ঞাতপরিচয় এক ছিনতাইকারীকে উদ্ধার করে কুমুদিনী হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মির্জাপুর থানার ওসি এ কে এম মিজানুল হক বলেন, নিহতের পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।

পিডিএসও/হেলাল