প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তাকে মারধরের অভিযোগ

প্রকাশ : ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৯:৩৭

মাজহারুল ইসলাম মিশু, হালুয়াঘাট

ময়মনসিংহ জেলার হালুয়াঘাটে স্কুলের প্রধান শিক্ষক শহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তাসহ অন্য ২ জনকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার মেহের আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শহিদুল ইসলাম উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসে প্রবেশ করে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রোকনুজ্জামান কে না পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তা মোশারফ হোসেনকে লাঠি দিয়ে আঘাত করে। অবস্থা বেগতিক দেখে অফিসে অবস্থানরত ধারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল হালিম ও কম্পিউটার অপারেটর বাসির উদ্দিন বাধা দিলে তাদেরকেও মারধর করে দৌড়ে পালিয়ে যান সেই প্রধান শিক্ষক। 

এ সময় উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ও শিক্ষক নেতৃবৃন্দ উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা কার্যালয়ে মৌখিকভাবে বিষয়টি অবহিত করেন। উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা জাকির হোসেন অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক শহিদুলের বিরুদ্ধে সাময়িক বরখাস্তসহ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের পরামর্শ দেন। পরে আহত তিনজন হালুয়াঘাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে থানায় মামলা করার প্রস্তুতি নেন। 

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রোকনুজ্জামান বলেন, প্রধান শিক্ষক শহিদুল ইসলাম নিয়মিত স্কুলে না আসায় গত তিনদিন আগে এটিও মোশারফ হোসেন কারণ দর্শানোর নোটিশ করেন। এরই জের ধরে তাদের ওপর অতর্কিত হামলা করে। 

প্রধান শিক্ষক শহিদুল ইসলাম জানান, তিনি সকালে ব্যাংকে বেতন উত্তোলনের জন্য গিয়েছিলেন। সেখানে তার একাউন্টে জানুয়ারি মাসের বিল না আসায় ক্ষিপ্ত হয়ে এমনটি করেছেন বলে স্বীকারোক্তি করেন।

পুলিশ অভিযুক্ত শিক্ষক শহিদুল ইসলামকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসে। 

পিডিএসও/রিহাব