ঢাকায় ৩ দিনব্যাপী বাংলাদেশ-ভারত বাউলসংগীত উৎসব

প্রকাশ : ০৭ অক্টোবর ২০১৯, ১৫:০২ | আপডেট : ০৭ অক্টোবর ২০১৯, ১৫:১৪

অনলাইন ডেস্ক

লালন বিশ্বসংঘের একযুগ পূর্তি উদযাপন ও ফকির লালন শাহের ১২৯তম তিরোভাব বর্ষ জাতীয়ভাবে পালনের লক্ষ্যে আগামী ১০ থেকে ১২ অক্টোবর রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যান মুক্তমঞ্চে দুই বাংলার বিশিষ্ট বাউল-শিল্পীদের অংশগ্রহণে ৩ দিনব্যাপী ‘বাংলাদেশ-ভারত বাউলসংগীত উৎসব’ অনুষ্ঠিত হবে।

সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও ভারতীয় হাই কমিশনের সহযোগিতায় এবং অলিম্পিক গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় উৎসবটি আয়োজন করেছে লালন বিশ্বসংঘ।

আগামী ১০ই অক্টোবর বৃহষ্পতিবার ২০১৯ বিকেল ৫ টায় এ উৎসবের উদ্বোধন করবেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী জনাব কে এম খালিদ এমপি। বিশেষ অতিথি থাকবেন বাংলাদেশস্থ ভারতীয় হাইকমিশনার শ্রীমতী রীভা গাঙ্গুলি দাশ, বিশিষ্ট সমাজকর্মী ও মানবাধিকার নেত্রী শ্রীমতী অ্যারোমা দত্ত এমপি, পশ্চিমবঙ্গের বিশিষ্ট বাউল গবেষক ও লেখক করুণাপ্রসাদ দে, ও বিশিষ্ট শিল্পপতি ও সমাজসেবী মোঃ মোবারক আলী।

স্বাগত বক্তব্য রাখবেন লালন বিশ্বসংঘের নির্বাহী পরিচালক আবদেল মাননান। সভাপতিত্ব করবেন লালন বিশ্বসংঘের চেয়ারম্যান ও গ্লোবাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান।

আগামী ১১ই অক্টোবর শুক্রবার বিকাল ৪ টায় লালন বিশ্বসংঘ সংগীতদল পরিবেশন করবে ফকির লালন শাহের গোষ্ঠলীলা অবলম্বনে শ্রুতিগীতিনাট্য ‘গোষ্ঠে চলো হরি মুরারি’। বিকাল ৫ টায় ‘ফকিরের মানুষতত্ত্ব বা বাউলের আত্মতত্ত্ব : সম্ভাবনার মহাপ্রেমময় মুক্তবিশ্বপথ’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন বিশিষ্ট লালন গবেষক আবদেল মাননান।

আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন নজরুল ইনস্টিটিউটের প্রাক্তন মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নুরুল হুদা, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক জহিরুল ইসলাম, ইসলামপুর সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের উপাধ্যক্ষ ফরিদ আহমেদ, কবি ও কৃষিবিদ ড. কাজী আফজাল হোসেন ও পশ্চিমবঙ্গের বাউল গবেষক শ্রীমতী সূচেতনা দে।

আগামী ১২ই অক্টোবর শনিবার বিকেল ৫ টায় উৎসবের সমাপনী দিনে ‘দুই বাংলার বাউল সম্মাননা’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জনাব মোঃ জাকির হোসেন এমপি।উৎসবে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত বাউলসঙ্গীত পরিবেশন করবেন দুই বাংলার বিশিষ্ট বাউল-শিল্পীবৃন্দ। উৎসবটি সবার জন্য উন্মুক্ত।

পিডিএসও/তাজ