জাতীয় জাদুঘর ট্রাস্টিজের নতুন সভাপতি শামসুজ্জামান খান

প্রকাশ : ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৫:৫৭ | আপডেট : ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৬:০৮

অনলাইন ডেস্ক

বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর দেশের ইতিহাস ঐতিহ্যের নিদর্শন সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও গবেষণার কাজে নিয়োজিত একটি জাতীয় প্রতিষ্ঠান। ১৯১৩ সালের ৭ আগস্ট মাত্র ৩৭৯টি নিদর্শন নিয়ে ব্রিটিশ সচিবালয়ের একটি কক্ষে (বর্তমান ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল) ঢাকা জাদুঘর হিসেবে এর যাত্রা শুরু করা হয়। ১৯৮৩ সালে ঢাকা জাদুঘরের সকল নিদর্শন, সম্পদ ও জনবল আত্মীকরণ করে রূপান্তরিত হয় বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর।

বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর স্বায়ত্তশাসিত একটি প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠাটি পরিচালনার জন্য রয়েছে ১৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি বোর্ড। যাকে বলা হয় বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর প্রযত্নবোর্ড। বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর অধ্যাদেশ ১৯৮৩-এর ৬নং ধারার ক্ষমতা বলে এই বোর্ড গঠন করা হয়।

এদিকে, গত ২৯ আগস্ট ২০১৯ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর বোর্ড অব ট্রাস্টিজের পুনর্গঠন করেছে। বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ফোকলোরবিদ অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান।

অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ স্বাধীনতা পদক এবং একুশে পদকপ্রাপ্ত একজন গবেষক। তিনি ১৯৯৭ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়া তিনি বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক হিসেবে তিনি দীর্ঘদিন কাজ করেছেন।

বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য হিসেবে মনোনীত হয়েছেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের সচিব, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের প্রাত্তন অধ্যাপক ড. সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গনিত বিভাগের প্রাত্তন অধ্যাপক ড. মো. মোবারক হোসেন, বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের মহাপরিচালক, আর্কাইভ ও গ্রন্থাগার অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের ডীন, এশিয়াটিক সোসাইটি অব বাংলাদেশের প্রতিনিধি, স্থাপতি রবিউল হোসাইন, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক বিশ্বজিত ঘোষ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের প্রাত্তন অধ্যাপক ড. সোনিয়া নিশাত আমিন, শেফা-উল-মূলক হাকিম হাবিব-উর-রহমান ফাউন্ডেশনের উপহারদাতা জনাব এজাজুর রহমান এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাত্তন অধ্যাপক ড. সুলতানা শফি।

বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর বোর্ড অব ট্রাস্টিজের মেয়াদ ৩ বছর বলবৎ থাকবে।

পিডিএসও/তাজ