শিল্পকলায় বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক উৎসবে পাপেট শো

প্রকাশ : ১২ মার্চ ২০১৮, ১৫:৪৯

অনলাইন ডেস্ক

শিল্পকলায় ৭ মার্চ থেকে শুরু হয়েছে ‘বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক উৎসব ২০১৮’। চলবে ১৭ মার্চ পর্যন্ত। আয়োজনের ধারাবাহিকতায় গত শনিবার উৎসবমুখর পরিবেশে শিল্পকলায় পরিবেশন করা হয় পাপেট শো। শিল্পী মুস্তাফা মনোয়ারের পরিচালনায় এবং মালটিমিডিয়া পাপেট থিয়েটারের পরিবেশনায় জাতীয় চিত্রশালা প্লাজায় পাপেট শো অনুষ্ঠিত হয়।

উৎসব আয়োজনে বরেণ্য শিল্পী,কবি, নারী, শিশু ও বিশেষভাবে সক্ষম শিশুদের অংশগ্রহণে বিশেষ বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এসব আয়োজনের মধ্যে রয়েছে স্বরচিত কবিতা পাঠ, নৃত্য প্রযোজনা, সুর ও বাণীতে বঙ্গবন্ধু, চলচ্চিত্র নির্মাণ কর্মশালা, নাটক, অ্যাক্রোবেটিক প্রদর্শনী, প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শনী, ঢাকা মহানগরসহ দেশব্যাপী চিত্রাংকন ও ৭ মার্চের ভাষণ প্রতিযোগিতা।

এদিকে শনিবার সকাল থেকেই শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালার ৫ ও ৬ নং গ্যালারীতে ‘বঙ্গবন্ধুর শৈশব’, ‘বঙ্গবন্ধুর কৈশোর’, ‘বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী’, ‘বঙ্গবন্ধুর কারাগারের রোজনামচা’, ‘বঙ্গবন্ধু ও ভাষা আন্দোলন’, ‘বঙ্গবন্ধুর ও গণ আন্দোলন (১৯৪৭-১৯৭৫) ‘বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ’, ‘বঙ্গবন্ধুর ও মুক্তিযুদ্ধ’, ‘বঙ্গবন্ধুর দেশ গঠনের সাড়ে তিন বছর (১৯৭২-১৯৭৫)’, ‘বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবন’ এবং ‘১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যাকান্ড’ বিষয়ের উপর অনুষ্ঠিত হয় শিশু চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা।

প্রতিযোগিতায় প্রাথমিক থেকে মাধ্যমিক পর্যায়ের ৪টি গ্রুপে ১৩২জন প্রতিযোগি অংশগ্রহণ করে। এদের মধ্যে প্রতি গ্রুপে ৩জনসহ মোট ১২জন বিজয়ীকে আগমী ১৭মার্চ শিশু উৎসবে পুরস্কৃত করা হবে। চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা শেষে শিশুদের জন্য আয়োজন করা হয় পাপেট শো।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ প্রামাণ্য ঐতিহ্য হিসেবে ইউনেস্কোর ‘মেমোরী অব দ্যা ওয়ার্ল্ড ইন্টারন্যাশনাল রেজিস্টার’-এ অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। ইউনেস্কোর এই স্বীকৃতির ফলে ভাষণটি বিশ্বের এক অনন্য দলিলে পরিণত হয়েছে। ৭ই মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণের এই স্বীকৃতি উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ৭-১৭ মার্চ আয়োজন করেছে ‘বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক উৎসব ২০১৮’।

পিডিএসও/তাজ