মেলার মোট বিক্রি ৭০ কোটি ৫০ লাখ

প্রকাশ : ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ২১:০৩ | আপডেট : ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ২১:৩৭

অনলাইন ডেস্ক

 

মাসব্যাপী অমর একুশে বইমেলায় সব মিলিয়ে ৭০ কোটি ৫০ লাখ টাকার বই বিক্রয় হয়েছে, যা গত বছরের চেয়ে ৫ কোটি টাকার বেশি।

বাংলা একাডেমির তথ্য অনুযায়ী, ২০১৭ সালে ৬৫ কোটি ৪০ লাখ টাকার বই বিক্রি হয়েছিল, যা ছিল তার আগের বছরের চেয়ে ২৩ কোটি টাকা বেশি।

বুধবার মেলার শেষ দিনে আয়োজক বাংলা একাডেমি কর্তৃপক্ষ এবার মেলায় আসা নতুন বইয়ের সংখ্যা জানানোর পাশাপাশি বই বিক্রির এই হিসাব দেয়।

সারা বছর প্রকাশনীগুলোর নিজস্ব বিপণন কেন্দ্র ও ছোট পরিসরের মেলায় বই বিক্রি হলেও ফেব্রুয়ারির এই বইমেলা ঘিরে প্রস্তুতি নেন প্রকাশকরা। সাধারণত নতুন বই এই সময়টাতেই প্রকাশ করেন তারা।

এবার মেলায় চার হাজার ৫৯১টি নতুন বই প্রকাশ হয়েছে। এগুলোর মধ্যে মাত্র ৪৮৮টি বইকে ‘মানসম্পন্ন’ মনে করছে বাংলা একাডেমি।

সন্ধ্যায় গ্রন্থমেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত সমাপনী অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, বাংলা একাডেমির সভাপতি অধ্যাপক আনিসুজ্জামান ও বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান।
এতে গ্রন্থমেলার মূল প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন মেলা আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব ও বাংলা একাডেমির পরিচালক (বিক্রয়, বিপণন) জালাল আহমেদ।

জালাল আহমেদ জানান, এবার বইমেলায় প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা চার হাজার ৫৯১টি, যা গতবারের চেয়ে ৯৪৫টি বেশি। গতবার বই প্রকাশিত হয়েছিল ৩ হাজার ৬৪৬টি।

এবার নতুন বইয়ের মধ্যে কবিতার বইয়ের সংখ্যা বেশি, ১ হাজার ৪৭২টি। এরপর রয়েছে গল্প ও উপন্যাসের স্থান। এবার গল্পের বই ৭০১টি এবং ৬৪৩টি উপন্যাস প্রকাশিত হয়েছে।

মননশীল বইয়ের মধ্যে প্রবন্ধ ২৫৭টি, গবেষণা ১২২টি, জীবনীগ্রন্থ ১০৭টি, রচনাবলী ১৫টি, নাটক ২৩টি, ভ্রমণ বিষয়ক ৯১টি, ইতিহাসের ১১০টি বই প্রকাশিত হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে বই প্রকাশিত হয়েছে ৯১টি।

এছাড়া নতুন বইয়ের মধ্যে বিজ্ঞান বিষয়ক ৭৬টি, রাজনীতি-২২টি, চিকিৎসা/স্বাস্থ্য- ৩৩টি, রম্য ও ধাঁধাঁ-২১টি, ধর্মীয়- ২৬টি এবং ৪৮টি অনুবাদ গন্থ প্রকাশিত হয়েছে। শিশুতোষ  বই এসেছে ১২৫টি, ছড়ার বই এসেছে ১১২টি। 

তরুণ পাঠকের আগ্রহের তুঙ্গে থাকা সায়েন্স ফিকশন ও গোয়েন্দা বিষয়ক বই এসেছে ৬৫টি। এছাড়া অভিধান বিষয়ক বই এসেছে ৭টি,  অন্যান্য বিষয়ে এসেছে ৪২৪টি বই।

জালাল আহমেদ বলেন, এ বছর মেলা উপলক্ষে প্রকাশিত চার হাজার ৫৯১টি নতুন বইয়ের মধ্যে মানসম্মত বই মাত্র ৪৮৮টি। বাংলা একাডেমির একটি কমিটিকে নিয়ে নতুন বইয়ের স্টলে আসা বইগুলো পরীক্ষা করে আমরা প্রাথমিকভাবে মান নিরূপনের চেষ্টা করেছি। মানসম্মন্ন বই যখন এত কম প্রকাশিত হয়, তখন আনিসুজ্জামান স্যারের এই কথাটি মনে রাখতে হবে-‘শত বই না লিখে সৃষ্টির জন্য একটি বই-ই লিখুন। প্রয়োজনে সময় নিয়ে লিখুন।

গুণীজনদের স্মৃতিতে এবার চারটি স্মৃতি পুরস্কার দিয়েছে বাংলা একাডেমি।  এগুলো হল- চিত্তরঞ্জন সাহা স্মৃতি পুরস্কার, মুনীর চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার, রোকনুজ্জামান খান দাদাভাই স্মৃতি পুরস্কার, শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার।

পিডিএসও/রিহাব